বিদেশে স্পিনারদের উইকেট দেয়া বিরাট অপরাধ

প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে দুই প্রোটিয়া স্পিনারের কাছে টাইগার ব্যাটারদের অসহায় আত্মসমর্পন অবাক করেছে অনেককেই। স্পিন নির্ভর কন্ডিশনে খেলে অভ্যস্ত দলটির এমন স্পিন দূর্বলতা দৃষ্টিকটু লেগেছে খোদ অধিনায়কের কাছেও। সংবাদ সম্মেলনে এসে তিনি বলেছিলেন, এটা অপরাধ।

মমিনুল হক বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় বিদেশে এসে স্পিনারদের উইকেট দেয়া বিরাট বড় একটা অপরাধ। আপনি বিদেশে এসে স্পিনারদের উইকেট দিতে পারবেন না।’

সেই ম্যাচে কেশব মহারাজ ও সাইমন হারমার একাই ধস নামিয়েছেন বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইন আপে। মমিনুলদের ২০ উইকেটের মধ্যে ১৪ টিই নিয়েছেন এই দুই স্পিনার। দ্বিতীয় ইনিংসে গোটা বাংলাদেশ দলই ধরাশয়ী হয়েছে তাদের স্পিনে। তবে হতাশার ভিড়ে আশার আলো হয়ে ফুটেছিলেন পেসাররা।

পেসারদের এমন পারফরম্যান্সে উচ্ছ্বসিত বাংলাদেশের বোলিং কোচ অ্যালান ডোনাল্ডও। দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে পাঠানো এক ভিডিও বার্তায় কিংবদন্তি পেসার বলেন, ‘বাংলাদেশের পেসাররা গর্ববোধ করতেই পারে যেভাবে তার প্রথম টেস্টে বল করেছে। আমরা খুব একটা ভাল শুরু করিনি। আমি মনে করি যেভাবে খালেদ, এবাদতরা বল করেছে আমি মনে করি সব পেসাররাই ভাল করেছে। বিশেষ করে দ্বিতীয় ইনিংসে। যেভাবে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে আমরা উইকেট তুলে নিয়েছি।’

তবে এসব এখন অতীত। আগামীকাল পোর্ট এলিজাবেথের সেন্ট জর্জেস পার্কে সিরিজের দ্বিতীয় ও সর্বশেষ টেস্টে মাঠে নামবে বাংলাদেশ ও দক্ষিণ আফ্রিকা। আগের ম্যাচ ভুল শুধরে নিতে আজ অনুশীলনে বেশ মনোযোগী দেখা গেছে মমিনুল বাহিনীকে।

কিংসমিডে এক স্পিনার খেলিয়ে সমালোচনার শিকার হয়েছিল টিম ম্যানেজমেন্ট। আজ তাইজুল ইসলামকে নিয়ে আলাদাভাবে অনুশীলন করেছেন স্পিন বিশেষজ্ঞ রঙ্গনা হেরাথ। ব্যাটিং গুরু জেমি সিডন্সও মনোযোগী ছিলেন শিষ্যদের ভুল শুধরে দিতে। সব মিলিয়ে অনুশীলনে দেখা মিলেছে এক দৃঢ়প্রত্যয়ী বাংলাদেশ শিবিরের।