তিন গেমসের প্রস্তুতি শুরু মার্চ থেকেই

চলতি বছর কমনওয়েলথ, এশিয়ান গেমস, ইসলামিক সলিডারিটির মতো গেমসের আসর। জুলাই থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে এই তিনটি গেমস অনুষ্ঠিত হবে। এই তিন গেমসকে সামনে রেখে গতকাল বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশনের ট্রেনিং এন্ড ডেভলপমেন্ট কমিটির সভা হয়। সেই সভায় মার্চ থেকেই আসন্ন গেমসগুলোর জন্য প্রস্তুতি শুরুর সিদ্ধান্ত হয়।

বিওএ’র কোষাধ্যক্ষ ও ট্রেনিং এন্ড ডেভলপমেন্ট কমিটির সদস্য সচিব একে সরকার বলেন, ‘অতি স্বল্প সময়ের ব্যবধানে বড় তিনটি গেমস অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য মার্চ থেকেই অনুশীলন শুরু করার আলোচনা হয়েছে।’

দেশের ক্রীড়াঙ্গনে প্রশিক্ষণের বড় সংকট অর্থ। সেই আর্থিক বিষয়ে ফেডারেশনগুলোর পাশে থাকবে বিওএ, ‘ফেডারেশনগুলো প্রশিক্ষণের জন্য অর্থ পাবে। আমরা এই ব্যাপারে বাজেট তৈরি করছি’ -বলেন একে সরকার।

এই বছর কয়েকটি বড় গেমস রয়েছে। এজন্য সরকারের কাছে প্রশিক্ষণের জন্য অর্থ বরাদ্দ চেয়েছিল বিওএ। প্রশিক্ষণ খাতে ৫ কোটি ৬০ লাখ টাকা বরাদ্দ অনুমোদন হয়েছে। বরাদ্দ অনুমোদন হলেও এখনো বিওএ সেই অর্থ পায়নি। অর্থ না পেলেও অনুশীলন শুরুতে দেরি করতে চায় না বিওএ।

এশিয়ান গেমস, কমনওয়েলথ গেমসে বাংলাদেশের ক্রীড়াবিদ সংখ্যা সীমিত। এই সংখ্যা সীমিত হলেও মার্চ থেকে শুরু হতে যাওয়া অনুশীলনে প্রশিক্ষণে থাকবেন গেমসে অংশ নিতে যাওয়াদের পাশাপাশি সম্ভাবনাময় খেলোয়াড়রাও। আগামী বছর এসএ গেমস হওয়ার সূচি রয়েছে। সেই গেমসে বিওএ ব্যক্তিগত ইভেন্টকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। ১৮ ডিসিপ্লিনে ব্যক্তিগত ইভেন্ট পদক রয়েছে ২৮৫ টি। সেই ১৮ ডিসিপ্লিনে অন্তত দুই ইভেন্টে সম্ভাবনাময় খেলোয়াড়দেরকে চিহ্নিত করার জন্য ফেডারেশনগুলোকে অনুরোধ করেছে বিওএ, ‘আমরা আগামী এসএ গেমসে সোনার সংখ্যা বাড়াতে চাই। এজন্য আগে থেকেই খেলোয়াড়দের অনুশীলনে রাখতে চাই। এজন্য কয়েকটি ফেডারেশনকে ব্যক্তিগত ইভেন্টে যে সকল খেলোয়াড়দের সম্ভাবনা রয়েছে তাদের বিশেষভাবে অনুশীলনে রাখার কথা বলা হয়েছে। এদের অনেকে মার্চ থেকেই অনুশীলনে থাকবে।’

দীর্ঘদিন প্রশিক্ষণ চালিয়ে যাওয়ার মতো সামর্থ্য বাংলাদেশের অনেক ফেডারেশনেরই নেই। এই প্রসঙ্গে বিওএ’র ট্রেনিং ও ডেভলপমেন্ট কমিটির সদস্য সচিব বলেন, ‘সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তো অনুশীলন চলবেই। এর মধ্যে আগামী এসএ গেমস নিয়ে একটা গাইডলাইন পাওয়া যাবে। এরপর বিওএ সেই অনুযায়ী একটি পরিকল্পনা গ্রহণ করবে।’

উন্নত প্রশিক্ষণ ও ফলাফলের জন্য প্রয়োজন কোচ। বিদেশি কোচের ব্যয় বহন করার সামর্থ্য নেই অনেক ফেডারেশনেরই। বিদেশি কোচের বিষয়ে বিওএ’র ভাষ্য, ‘বিদেশি কোচের অর্থ দীর্ঘদিন বহন করা বিওএ’র পক্ষেও বহন করা কষ্টসাধ্য। এসএ গেমসের দিনক্ষণ ঠিক হলে কোনো ফেডারেশন উন্নত মানের কোচ আনলে সেক্ষেত্রে বিচার বিবেচনা বিওএ পাশে থাকার চেষ্টা করবে।’