‘মানবাধিকার নিয়ে কথা বলা দেশ নিজেরাই তা লঙ্ঘন করছে’

বিশ্বের যেসব দেশ অন্যের দেশের মানবাধিকার নিয়ে সরব তাদের নিজ দেশেই মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে, কিন্তু সেইসব সেটা দেখতে পায় না বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

শুক্রবার (১১ মার্চ) বিকালে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর আয়োজিত ‘দশম লিবারেশন ডকফেস্ট’ প্রামাণ্যচিত্র উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বিশ্ব মানবাধিকার নিয়ে আমরা সবাই সোচ্চার৷ আবার কিছু কিছু দেশ আছে যারা অনেক বেশি সোচ্চার। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য, সেসব দেশ মানবাধিকার নিয়ে অনেক বেশি সোচ্চার, পরদেশী মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে বলে সরব, কিন্তু নিজের দেশে যে ব্যাপকভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে সে ব্যাপারে সোচ্চার নয়। আমরা যারা মানবাধিকার নিয়ে কাজ করি, আমরা নিজেদের ঘরের মধ্যে মানবাধিকার রক্ষা করি না।’

স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের বিষয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘ছবির বিষয় হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধ ও মানবাধিকার। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ। আমাদের মতো এরকম যুদ্ধ করে খুব কম দেশ স্বাধীন হয়েছে। এত প্রাণের বিনিময়ে, এত রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মধ্য দিয়ে সব দেশ স্বাধীনতা অর্জন করেনি। আমাদের মুক্তিযুদ্ধ সমগ্র পৃথিবীর মানুষের মুক্তিকামী মানুষের জন্য একটি উদাহরণ। আমাদের মুক্তিযুদ্ধ ছিল একটি প্রশিক্ষিত বাহিনীর বিরুদ্ধে জনযুদ্ধ। এই জনযুদ্ধের মধ্য দিয়ে আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছি। পৃথিবীর অনেক অঞ্চল আছে যেখানে মানুষ স্বাধীনতার জন্য লড়াই করছে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘আমি মনে করি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আমাদের মুক্তিযুদ্ধ আমাদের যে স্বাধীনতার সংগ্রাম এবং স্বাধীনতা সংগ্রামের মধ্য দিয়ে আমাদের অর্জন, স্বাধীন বাংলাদেশ। এটি যুগে যুগে পৃথিবীর ইতিহাসে, মানব সভ্যতার ইতিহাসে মুক্তিকামী মানুষের জন্য একটি উদাহরণ হয়ে থাকবে।’ তিনি বলেন, ‘যে শর্টফিল্মগুলো এসেছে সেগুলো নিশ্চয়ই আমাদের তৃতীয় নয়ন খুলে দেওয়ার মতো।’

জীবনমুখী শর্টফিল্ম বাড়ছে এবং সেখান থেকে বার্তা পাওয়া যায়। যার মাধ্যমে বর্তমান প্রজন্মকে সমাজ পরিবর্তনের ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখতে পারে। সে দিকে দৃষ্টি রাখতে হবে বলে বলে মনে করেন তথ্যমন্ত্রী।

এবারের আয়োজনে বিশ্বের ১৯৬টি দেশ থেকে জমা হয় ২১ শতাধিক ছবি। জমাকৃত ছবির মধ্য থেকে ৪০টি দেশের ১৪০টি ছবি প্রদর্শিত হবে।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে সাবেক মন্ত্রী ও সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূর উপস্থিত ছিলেন।