জনশুমারির তথ্য পর্যবেক্ষণের জন্য অ্যাপ তৈরি

দেশব্যাপী একযোগে সাতদিনব্যাপী জনশুমারির তথ্য সংগ্রহ করা হবে আগামী ১৫ থেকে ২১ জুন। এ কার্যক্রমের অগ্রগতি মনিটরের জন্য শুমারি পর্যবেক্ষণ অ্যাপ তৈরি করা হয়েছে। যার মাধ্যমে মাঠ পর্যায়ের তথ্য সংগ্রহ কার্যক্রম রিয়েল টাইম মনিটর (তাৎক্ষণিক পর্যবেক্ষণ) করা সম্ভব হবে। এ প্রক্রিয়াটি নির্ভুল তথ্য সংগ্রহ করার ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে। এছাড়া কম সময়ে শুমারির রিপোর্ট প্রকাশ সম্ভব হবে।

‘জনশুমারি ও গৃহ গণনা ২০২২’ প্রকল্পের পরিচালক মো. দিলদার হোসেন বৃহস্পতিবার (৭ এপ্রিল) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এসব তথ্য জানান।

এতে বলা হয়, এবার বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) প্রথম ‘ডিজিটাল শুমারি’ করেছে। আগামী ১৫-২১ জুন জনশুমারির মূল তথ্য সংগ্রহ কার্যক্রম পরিচালিত হবে। শুমারিতে জিআইএস (জিওগ্রাফিক ইনফরমেশন সিস্টেম) সম্বলিত ডিজিটাল ম্যাপ ব্যবহার ও সিএপিআই (কম্পিউটার এসিসটেড পার্সোনাল ইন্টারভিউ উইং) পদ্ধতিতে ‘ট্যাবলেট’র ব্যবহারের মাধ্যমে মাঠ পর্যায়ে তথ্য সংগ্রহ করা হবে।

বিজ্ঞপ্তি আরও বলা হয়, জনশুমারির কার্যক্রমের সাময়িকভাবে নিযুক্ত তথ্য সংগ্রহকারী যারা স্থানীয় শিক্ষিত যুবক ও নারী রয়েছেন, তারা প্রত্যেক বাড়ি, খানা ও ব্যক্তির তথ্য ট্যাবলেটের মাধ্যমে সংগ্রহ করবে। মাঠ পর্যায় থেকে সংগৃহীত তথ্য সংরক্ষণ এবং নিরাপত্তা নিশ্চিতে বাংলাদেশ ডেটা সেন্টার কোম্পানি লিমিটেডের (বিডিসিসিএল) ডেটা সেন্টার ব্যবহার করা হবে। মাঠ পর্যায় থেকে সংগৃহীত তথ্য সার্ভারে আসার আসার আগ পর্যন্ত নিরাপদ অবস্থায় থাকবে। যার মাধ্যমে ব্যক্তিগত তথ্যের নিরাপত্তা শতভাগ নিশ্চিত করা হচ্ছে।

শুমারি শুরুর আগে ১৪ জুন রাত ১২টাকে ‘শুমারি রেফারেন্স পয়েন্ট বা সময়’ হিসেবে ধরা হয়েছে। আর ১৫-২১ জুন ‘শুমারি সপ্তাহ’।