সঞ্চয় বাড়াতে বাজেট করবেন যেভাবে

যখন আপনি একাধিক জিনিস কিনতে চান এবং অর্থ ব্যয় করতে চান তখন আপনার অর্থের ওপর কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ রাখা বেশ কঠিন হতে পারে। কিন্তু আমরা সবাই জানি, একটি আরামদায়ক এবং স্থিতিশীল জীবন যাপন করার জন্য আমাদেরর অর্থ সঞ্চয় করা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। উদ্দেশ্যহীনভাবে অর্থ ব্যয় করার অভ্যাস আপনাকে খুব দ্রুতই অভাবগ্রস্ত ও ঋণগ্রস্ত করতে পারে। আর তাই একটি বাজেট ফ্রেমওয়ার্ক বজায় রাখা গুরুত্বপূর্ণ, যা আপনাকে কখন এবং কীসের জন্য অর্থ ব্যয় করতে হবে তা নির্ধারণ করতে সাহায্য করবে। কিছু বাজেটিং টিপস জেনে নিন যা আপনার আর্থিক সঞ্চয় বৃদ্ধি করবে-

সঠিক বাজেট তৈরি করুন

একটি সংগঠিত বাজেট তৈরি করতে MS Excel এর সাহায্য নিন। আপনার উদ্দেশ্য এবং আপনি কত খরচ করেছেন ইত্যাদি বর্ণনা করতে সারি এবং কলাম ব্যবহার করুন। এভাবে আপনি পুরো মাসে আপনার সমস্ত ব্যয়ের হিসাব রাখতে পারেন। তবে এর জন্য আপনাকে ধারাবাহিকভাবে হিসাব রাখতে হবে।

নিয়ম তৈরি করুন

নিজেকে কঠোর নিয়মের ভেতর নিয়ে আসুন যেন আপনার ব্যয় বাজেটের মধ্যে থাকে। আপনাকে আপনার অর্থের একটি নির্দিষ্ট শতাংশ ট্যাক্স, খাদ্য, বাসস্থান এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয়তার জন্য ব্যয় করতে হবে। এরপর বিবিধ খরচের জন্য সেই বাজেটের ২০-৩০% যোগ করতে পারেন, বাকিটা আপনার সেভিংস অ্যাকাউন্টে যেতে পারে।

অ্যাপস

আধুনিক যুগের প্রযুক্তি দ্রুত এবং সংগঠিত উপায়ে আপনার সমস্ত খরচের হিসাব রাখা তুলনামূলকভাবে সহজ করে তুলেছে। আপনাকে শুধু আপনার অ্যাকাউন্টে কত টাকা আছে এবং আপনি প্রতিদিন কত টাকা খরচ করছেন তা লিখতে হবে। আপনার ফোনে এটি থাকলে তা আপনার বাজেট চেক করার একটি দ্রুত উপায় হিসেবে কাজ করবে।

স্মার্টলি কেনাকাটা করুন

কিছু লোক শুধুমাত্র স্মার্টলি কেনাকাটা করার কারণেই মনের মতো জিনিস কিনতে পারে। এর মধ্যে রয়েছে শুধুমাত্র প্রয়োজনে জিনিস কেনা এবং বাড়িতে স্বাস্থ্যকর খাবার রান্না করে খাওয়ার মতো অভ্যাস। এটি বাইরের খাবার, দামী কাপড় এবং জিনিসপত্র ইত্যাদির অতিরিক্ত খরচ কমিয়ে দেয়।

বিভিন্ন মিউচুয়াল ফান্ডে অর্থ বিনিয়োগ করুন

বিভিন্ন মিউচুয়াল ফান্ডে অর্থ বিনিয়োগ আপনাকে লাভজনক অবস্থানে নিয়ে যেতে পারে। তবে প্রসিদ্ধ কোনো ফান্ড না হলে টাকা জমা রাখবেন না। কোথাও জমা রাখার আগে সেটি সম্পর্কে ভালোভাবে জেনে নিন। প্রতি মাসে নিয়ম করে অর্থ বিনিয়োগ করলে তা আপনার সঞ্চয় বাড়িয়ে তুলবে।