১৩ হাজার ৫০০ সৈন্য হারিয়েছে রাশিয়া: ইউক্রেন

২৪ ফেব্রুয়ারি প্রতিবেশী ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরু করে রাশিয়া। যুদ্ধের শুরু থেকে নিজেদের ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে তথ্য প্রকাশে সংকীর্ণতা দেখাচ্ছে ক্রেমলিন। তবে ইউক্রেন দাবি করেছে ১৩ হাজার ৫শত রুশ সৈন্য হত্যা করেছে তারা।

মঙ্গলবার (১৫ মার্চ) ইউক্রেনের ডিফেন্স জেনারেল স্টাফ সেরহিয়া শাইতলা দাবি করেছেন সৈন্যের পাশাপাশি ভারী অস্ত্রশস্ত্র হারিয়েছে মস্কো। তবে বিপুল সৈন্য এবং অর্ধসহস্র সামরিক সরঞ্জাম ধ্বংসের তথ্য প্রকাশ করলেও প্রমাণ সাপেক্ষে কোন তথ্য হাজির করতে পারেনি শাইতলা।

জেনারেল স্টাফের মতে, ইউক্রেনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করার পর থেকে ৮১টি বিমান, ৯৫টি হেলিকপ্টার এবং ৪০৪টি ট্যাঙ্ক হারিয়েছে রাশিয়া। ধ্বংস করা হয়েছে ৩৬টি রুশ অ্যান্টি-এয়ারক্রাফট ওয়ারফেয়ার সিস্টেম।

১৩০০টি রাশিয়ান সাঁজোয়া যুদ্ধ যান, ১৫০টি আর্টিলারি সিস্টেম, ৬৪টি মাল্টিপল লঞ্চ রকেট সিস্টেম ধ্বংসের দাবি করেছে ইউক্রেনীয় ডিফেন্স জেনারেল স্টাফ। রাশিয়ার ৬৪০টি যানবাহন, তিনটি নৌকা, ৬০টি জ্বালানী ট্যাঙ্ক এবং নয়টি চালকবিহীন আকাশযানও রয়েছে এ তালিকায়।

যুদ্ধ শুরুর পর থেকে একের পর এক ইউক্রেনীয় শহর দখলের খবর দিয়েছে বিশ্ব গণমাধ্যমগুলো। মঙ্গলবার ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর খেরসন দখলের খবর দেয় রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ইগর কোনাশেনকভ। হামলা চলছে রাজধানী কিয়েভে।

জাতিসংঘের মতে, যুদ্ধ শুরুর পর থেকে ইউক্রেনে অন্তত ৬৩৬ বেসামরিক নাগরিক নিহত এবং ১,১২৫ জন আহত হয়েছে। তবে সংস্থাটির প্রকৃত সংখ্যা সম্ভবত অনেক বেশি। জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা বলেছে, প্রায় ২,৮ মিলিয়ন মানুষ প্রতিবেশী দেশগুলোতে পালিয়ে গেছে।