হামলার পরিকল্পনা এক বছর আগের, দাবি রুশ এমপির

রাশিয়ার পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ দুমার একজন সদস্য বলেছেন, মস্কো ১২ মাস আগেই ইউক্রেন আক্রমণের পরিকল্পনা শুরু করেছিল। ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলার দ্বিতীয় সপ্তাহে বুধবার রাষ্ট্র-নিয়ন্ত্রিত টেলিভিশন চ্যানেল ওয়ান টিভিকে এই তথ্য জানিয়েছেন তিনি।

রিফাত শায়খুৎদিনভ বলেন, আমরা এই হামলা প্রস্তুত করিনি। এটি স্বতঃস্ফূর্তভাবেই এসেছে।

চ্যানেল ওয়ানের দৈনিক টকশো ‘টাইম উইল টেল’ এ অংশ নিয়ে তিনি বলেন, এই হামলার ব্যাপারে এক বছর ধরে প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছিল। হয়তো আরও বেশি সময় আগে থেকে। ইউক্রেনে কী ঘটছে আমরা সেটি বোঝার চেষ্টা করেছি। তাদেরকে আগাম সতর্কও করে দেওয়া হয়েছিল।

দুমার এই সদস্য বলেছেন, আক্রমণ না চালালে হামলার মুখে পড়তো রাশিয়া। তিনি বলেন, ‘গোয়েন্দা তথ্যে আমরা জানতে পেরেছিলাম যে, আমরা আক্রমণের দু’দিনের মধ্যে তাদের পরাজিত করতে পারবো। অবশ্যই আমরা সেখানে আমাদের নাগরিকদের রক্ষা করছি।

এর আগে, রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ বলেন, কিছু বিদেশি নেতা রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে বিশ্বাস করেন তিনি। এমন কিছু হলে মস্কো একেবারে ‘শেষ’ পর্যন্ত লড়াইয়ে থাকবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি। বৃহস্পতিবার মস্কোতে এক সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, পারমাণবিক যুদ্ধের কোনো চিন্তা নেই রাশিয়ার।

লাভরভ বলেছেন, ইউক্রেন সংকটের একটি সমাধান পাওয়া যাবে এবং এ বিষয়ে তার কোনো সন্দেহ নেই। ইউক্রেনীয় এবং রুশ কর্মকর্তাদের মধ্যে নতুন করে আলোচনা শুরু হতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

তবে পশ্চিমাদের সাথে আলোচনা অবশ্যই পারস্পরিক সম্মানের ভিত্তিতে হতে হবে বলে জানিয়েছেন সের্গেই লাভরভ। পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোর বিরুদ্ধে আধিপত্যবাদ টিকিয়ে রাখার অভিযোগ করেছেন তিনি। বলেছেন, অনেক সদিচ্ছা থাকলেও কাউকে নিজের স্বার্থ ক্ষুণ্ন করতে দিতে পারে না রাশিয়া।

তিনি বলেন, ‘রাশিয়ার জন্য হুমকি’ এমন কোনো স্থাপনা ইউক্রেনকে রাখতে দেবে না মস্কো। লাভরভ বলেন, ইউক্রেনের কাছ থেকে উদ্ভূত সামরিক হুমকিও মস্কো সহ্য করবে না। ইউক্রেনের ওপর রাশিয়ার অধিকার আছে বলে বিশ্বাস করেন তিনি।