পাকিস্তানের সংসদে যুক্তরাষ্ট্রের চিঠি নিয়ে ঝড়

চার ঘণ্টা বিলম্বের পর আবার বসেছে পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ভাগ্য নির্ধারণী সংসদ অধিবেশন। পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশির ভাষণের মধ্য দিয়ে দেড় ঘণ্টার জন্য মুলতবি হওয়া অধিবেশনটি পুনরায় শুরু হয়েছে।

ভাষণে মার্কিন উপ প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ডোনাল্ড লু’র চিঠি নিয়ে আলোচনা শুরু করেন মাহমুদ কুরেশি। লু’র চিঠি উদ্ধৃত করে ইমরান খান সরকারকে উৎখাতে যুক্তরাষ্ট্রের ষড়যন্ত্র প্রমাণিত হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। খবর জিও টিভি।

মাহমুদ কুরেশি বলেন, ‘‘আমি রোযা রেখেছি. আমি মিথ্যা বলতে পারি না। এটি (লু’র চিঠি) একটি খাঁটি দলিল ছিল।’’

গত মাসের শুরুতে অনাস্থা কাণ্ডে বিদেশি হুমকির মুখোমুখি হওয়ার দাবি করে ইমরান খান। যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লু কর্তৃক হুমকি যুক্ত চিঠি প্রেরণের দাবি তুলেন তিনি।

ভারত সফরে থাকা মার্কিন কর্মকর্তা ডোনাল্ড লুকে ইমরানের অভিযোগের বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে এড়িয়ে যান তিনি। লু বলেন, ‘আমরা পাকিস্তানের সংবিধান ও আইনের শাসনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।’

গত ৮ মার্চ পাকিস্তান জাতীয় পরিষদে ইমরান খানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব জমা দেয় বিরোধীদলগুলো। কয়েক দফা স্থগিত শেষে ৩ এপ্রিল এ বিষয়ে ভোটাভুটি হওয়ার কথা ছিল। এরই মধ্যে গত ৭ এপ্রিল পাকিস্তানের সর্বোচ্চ আদালত অনাস্থা প্রস্তাব খারিজের সিদ্ধান্তকে অবৈধ হিসেবে রায় দেয়। সেই সঙ্গে ৯ এপ্রিল অনাস্থা ভোট আয়োজনের নির্দেশ দেয়।

৩৪২ সদস্যের পাক জাতীয় পরিষদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণে ইমরান খানের ১৭২ জনের সমর্থন প্রয়োজন। তার দল পিটিআইয়ের সদস্য সংখ্যা ১৫৫। এরই মধ্যে বিরোধী দলগুলোর নির্দিষ্ট সংখ্যক ভোট দেওয়ার প্রস্তুতির খবরও জানিয়েছিল ডন।