দিল্লিতে প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী এখন কেমন আছেন

নিজের শহরে তিনিই প্রথম করোনা নিয়ে এসেছিলেন বলে আক্রোশের মুখে পড়েছিলেন। দু’বছর পরে এখন কেমন আছেন তিনি?

করোনা মহামারি শুরুর পর গত দুই বছরে একদিকে যেমন একের পর এক নতুন ভ্যারিয়েন্ট হানা দিয়েছে, তেমনি সংক্রমণ থেকে বাঁচতে মানুষের মধ্যে সচেতনতাও বেড়েছে। তবে একেবারে শুরুর দিকে যারা করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন, তাদের নিয়ে চারপাশের মানুষের বেশ উদ্বেগ ও আতঙ্ক ছিল।

কিন্তু পরিস্থিতি বদলে গেলেও সেইসব দিনের স্মৃতি এখনও রয়ে গেছে। কেমন প্রতিক্রিয়া পেয়েছিলেন, যখন জানতে পেরেছিলেন, করোনায় আক্রান্ত? কেমন মনোভাব দেখিয়েছিলেন বন্ধুবান্ধব আত্মীয়রা? দিল্লির প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী রোহিত দত্ত জানিয়েছেন সে অভিজ্ঞতা।

২০২০ সালের ১ মার্চ কোভিড সংক্রমণ ধরা পড়ে রোহিতের। দিল্লির প্রথম বাসিন্দা, যিনি করোনায় আক্রান্ত হন। ৪৭ বছরের রোহিত বলেছেন, ওই দিনটির কথা তিনি কখনও ভুলতে পারবেন না।

কর্মসূত্রে ইতালিতে যাতায়াত আছে রোহিতের। ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসেই তিনি ইতালি যান। সেখানে জ্বর হয় তার। চিকিৎসকরা বলেন, তিনি সাধারণ ফ্লুয়ে আক্রান্ত। কিছুটা সুস্থ হওয়ার পর তিনি বাড়ি ফিরে আসেন।

দিল্লি ফিরে আসার কিছুদিন পর ছেলের জন্মদিন উপলক্ষে ২৮ ফেব্রুয়ারি ছোট একটি পার্টির আয়োজন করেন। সেই পার্টিতে পরিবারের লোকজন ছাড়াও ছিলেন কয়েক জন বন্ধু। পার্টির দিন দুয়েক পরেই আবার অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। চিকিৎসকরা তার কোভিড পরীক্ষা করান। দেখা যায়, তিনি কোভিড পজিটিভ। তারিখ ছিল ১ মার্চ।

রোহিতের কথায়, ‘সেই সময়ে সংক্রমণটি নিয়ে বিভিন্ন ধরনের ভুল ধারণা এবং আতঙ্ক ছিল মানুষের মধ্যে। কোভিড সারিয়ে উঠতে যত দিন লেগেছিল, তার চেয়ে বেশি দিন লেগে যায় সেই জটিল পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে। নিজেরও অপরাধবোধ হতো।’

তারপর দুই বছর কেটে গিয়েছে। আর কখনও কোভিডে আক্রান্ত হননি তিনি। যদিও পরিবারের অনেকেই ওমিক্রনে আক্রান্ত হয়েছিলেন এবং সময়মতো সেরেও গিয়েছেন।

দু’বছর পরে এখন চারপাশের মানুষজন কী বলেন? রোহিতের কথায়, এখন সবাই বিষয়টি নিয়ে সচেতন হয়েছেন। কোভিডের হাত থেকে যে সহজে মুক্তি পাওয়া যাবে না, তাও বুঝেছেন। কিন্তু এখনও সেই প্রসঙ্গ উঠলেই বন্ধু আর আত্মীয়রা তার সঙ্গে ঠাট্টা করেন। তিক্ত অনুভূতিগুলো এখন চলে গিয়ে বিষয়টি স্মৃতি হিসাবে রয়ে গেছে সবার মধ্যে। এমনই জানিয়েছেন রোহিত দত্ত।ৎ