এবার যুক্তরাষ্ট্রের কোপে পুতিনের দুই কন্যা ও সাবেক স্ত্রী

রাশিয়ার ওপর একের পর এক নিষেধাজ্ঞা দিয়ে যাচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এরই মধ্যে দেশটির কয়েকশ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ওপরও নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ওয়াশিংটন। এবার নতুন নিষেধাজ্ঞায় রাশিয়ার বৃহত্তম সরকারি এবং বেসরকারি দুই ব্যাংকের পাশাপাশি হোয়াইট হাউসের তালিকায় নাম রয়েছে পুতিনের সাবেক স্ত্রী ও দুই কন্যার।

হোয়াইট হাউসের বিবৃতিতে জানানো হয়, রুশ প্রেসিডেন্টের সাবেক স্ত্রী লিউদমিলা স্কেরেনেভা ও দুই কন্যাসন্তান মারিয়া ভরনোতসোভা এবং কাতেরিনা তিখনোভার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হল। শুধু তারা নয়, নিষেধাজ্ঞা চাপানো হয়েছে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভের স্ত্রী-কন্যা, রাশিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট এবং প্রধানমন্ত্রীর উপরও। খবর রয়টার্সের

হোয়াইট হাউসের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘এরা প্রয় সকলেই রুশ জনতার টাকায় নিজেদের সমৃদ্ধ করেছে। এদের মধ্যে অনেকে আবার ইউক্রেনে রুশ হামলাকে সমর্থন করছে। তাই এই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হল।’

মার্কিন এক শীর্ষ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ‘আমাদের ধারনা, রুশ প্রেসিডেন্টের সম্পত্তির অনেকটাই পরিবারের সদস্যদের নামে করা রয়েছে। তারা বেনামে লেনদেন করে। তাই তাদের নিশানা করা হল এবার।’

অন্যদিকে রাশিয়ার বৃহত্তম সরকারি এবং বেসরকারি দুই ব্যাংক- বার ব্যাংক এবং আলফা ব্যাংককেও ‘ব্লক’ করেছে ওয়াশিংটন। আপাতত রাশিয়াতে কোনোরকম মার্কিন বিনিয়োগ করা হবে না বলেও জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

সম্প্রতি রাশিয়া দাবি করেছে ইউক্রেনে প্রথম পর্যায়ের সামরিক অভিযান প্রায় সমাপ্ত। এবার ডনবাস অঞ্চলকে সম্পূর্ণ স্বাধীন করার লক্ষ্যে নামবে তারা। এই বিষয়ে রাশিয়ার জেনারেল স্টাফের প্রধান সের্গেই রুডস্কোই জানান, প্রথম পর্যায়ের সামরিক অভিযান প্রায় শেষের দিকে। প্রথম লক্ষ্যের অধিকাংশ পূরণ হয়েছে। এবার পরবর্তী লক্ষ্যের জন্য প্রস্তুতি শুরু হবে।