দুই শিশুর মৃত্যু : হাসপাতালের তদন্ত কমিটির কার্যক্রম স্থগিত

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে ‘নাপা সিরাপ খেয়ে’ দুই শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ উঠার পর চিকিৎসায় কোনো গাফিলতি কিংবা চিকিৎসকের কোনো অবহেলা ছিল কিনা-সেটি তদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের গঠিত তদন্ত কমিটির কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। সোমবার (১৪ মার্চ) কমিটির কার্যক্রম স্থগিত করা হলেও মঙ্গলবার (১৫ মার্চ) বিষয়টি সাংবাদিকদের জানানো হয়।

জেলা সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মো. ওয়াহিদুজ্জামান জানান, দুই শিশুর মৃত্যুর ঘটনায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয় থেকেও তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটি গঠনের বিষয়টি আমাদের জানা ছিল না। ইতোমধ্যে কমিটি হাসপাতালে এসে তদন্ত করে গেছে। সেজন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তিন সদস্যের যে কমিটি গঠন করেছিল, সেটির কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে।

এর আগে গত ১০ মার্চ আশুগঞ্জ উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের দুর্গাপুর গ্রামের ইসমাইল হোসেনের দুই ছেলে ইয়াছিন খান (৭) ও মোরসালিন খান (৫) ‘নাপা সিরাপ খেয়ে’ মারা যায় বলে অভিযোগ উঠে। এ ঘটনায় ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয় এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পৃথক তিনটি তদন্ত কমিটি গঠন করে।

ওই দুই শিশুর মা লিমা বেগম জানান, নাপা সিরাপ খাওয়ানোর পর অসুস্থ হয়ে যাওয়া দুই শিশুকে প্রথমে আশুগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরবর্তীতে জেলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ভালো করে না দেখেই দুই শিশুর শারীরিক অবস্থা ভালো আছে জানিয়ে তাদরকে বাড়িতে নিয়ে বেশি করে পানি ও টক জাতীয় খাবার খাওয়ানোর পরামর্শ দেন। পরে বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার পথে এক শিশু এবং বাড়িতে নেওয়ার পর আরেক শিশুর মৃত্যু হয়।