দুই টাকায় মিলছে ইফতার

নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম যেখানে আকাশছোঁয়া, সেখানে মাত্র দুই টাকার বিনিময়ে ইফতারসামগ্রী বিক্রি করছে বরগুনার তালতলীর একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। ফলে নিম্ন আয়ের মানুষেরা স্বাচ্ছন্দ্যে নিতে পারছেন দামি খাবারের স্বাদ। উপজেলার শতাধিক সুবিধাবঞ্চিত মানুষ প্রতিদিন দুই টাকায় কিনতে পারছেন এই ইফতার।

জানা যায়, তালতলীর বাঁধঘাট এলাকায় ‘রমজান মাসে রোজাদারের পাশে’ স্লোগান নিয়ে ব্যক্তিগতভাবে এই উদ্যোগ নেন মেসার্স হাওলাদার ট্রেডার্সের মালিক তারেকুজ্জামান তারেক। শহরের বাঁধঘাট এলাকায় অস্থায়ী দোকান বসিয়ে চলে তাদের ইফতার বিক্রির আয়োজন। ছোলা, মুড়ি, সবজি, চপ, বেগুনিসহ ৭ ধরনের ইফতার সামগ্রী বিক্রি হচ্ছে এখানে৷ মাত্র দুই টাকায় ৭ ধরনের ইফতার পেয়ে খুশি ক্রেতারা।

প্রতিদিন শতাধিক দিনমজুর, দরিদ্র জেলে, রিকশাচালক, ভ্যানচালকসহ সুবিধাবঞ্চিতরা এখান থেকে ইফতার কেনেন। বিকেল পাঁচটা থেকে শুরু হয় ইফতার বিক্রি। পুরো মাসজুড়ে চলবে এ আয়োজন।

এখানে ইফতার কিনতে আসা রিকশাচালক, ভ্যানচালক ও কয়েকজন দিনমজুর বলেন, আমরা গরিব মানুষ, ইচ্ছে থাকলেও বেশি দাম দিয়ে এসব খাবার কিনতে পারছি না। বাচ্চারা অনেক সময় উন্নতমানের ইফতারের জন্য বায়না করে। এখানে দুই টাকায় আমরা এসব ইফতার কিনে বাড়িতে নিয়ে পরিবারের সবাইকে নিয়ে ইফতার করতে পারছি। আল্লাহর কাছে আয়োজকদের জন্য প্রাণ ভরে দোয়া করি।

এদিকে ব্যক্তি উদ্যোগে এমন আয়োজনকে সাধুবাদ জানিয়েছে সচেতন মহল। এ বিষয়ে সাংস্কৃতিক, সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন দুর্বারের সহসভাপতি আরিফ হোসেন ফসল বলেন, দরিদ্র ও নিম্ন আয়ের মানুষদের মাত্র দুই টাকায় ইফতার সরবারহ করছে হাওলাদার এন্টারপ্রাইজ। নিঃসন্দেহে এটি একটি মহৎ উদ্যোগ। পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানদের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে দাঁড়ানো উচিৎ। এই প্রতিষ্ঠান সামনেও এমন কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাবে বলে আশা রাখছি।

দুই টাকার ইফতারের আয়োজক ও মেসার্স হাওলাদার ট্রেডার্সের মালিক তারেকুজ্জামান তারেক বলেন, আমরা সচ্ছল যারা আছি, তারা সবাই রোজায় হরেক রকমের খাবার দিয়ে ইফতার করছি। কিন্তু সুবিধাবঞ্চিত, দরিদ্রদের সামর্থ্য নেই এসব আয়োজনের। তাই সুবিধাবঞ্চিত মানুষের কথা চিন্তা করে রমজান মাসে এই উদ্যোগ নিয়েছি। প্রতিদিন নিজ বাড়িতেই ইফতার তৈরি করা হয়। পরে দুই টাকার বিনিময়ে বিক্রি করা হয় এসব ইফতার। এই দুই টাকাও ব্যয় করা হবে অসহায় ও দুস্থদের জন্য। প্রতিবছরই সুবিধাবঞ্চিত মানুষের জন্য আমাদের এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ।