টেকনাফে সাড়ে পাঁচ কোটি টাকার মাদকসহ আটক ৭

কক্সবাজারের টেকনাফে পৃথক দুই অভিযানে সাড়ে পাঁচ কোটি টাকার আইস, ইয়াবা, অবৈধ কাঠসহ সাতজনকে আটক করেছে ২ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) ব্যাটালিয়ন। আটকদের মধ্যে মিয়ানমারের ছয় নাগরিক রয়েছেন।

বুধবার (৯ মার্চ) রাতে বিজিবির জনসংযোগ দপ্তর এই তথ্য জানায়।

বিজিবি জানায়, গত মঙ্গলবার (৮ মার্চ) দুপুরে সাবরাং বিওপির দায়িত্বপূর্ণ বিএমআর-০৪ হতে আনুমানিক ৩০০ গজ পূর্বে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ২-বিজিবির একটি বিশেষ টহলদল সেন্টমার্টিন দ্বীপ বিওপিতে যাচ্ছিল। এসময় নাফ নদীর মোহনায় এক সন্দেহভাজন ট্রলারকে আড়াআড়িভাবে সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে আসতে দেখে তারা। বিজিবির টহলদল সন্দেহভাজন ট্রলারটিকে চ্যালেঞ্জ করে এবং থামার সংকেত দেয়। বিজিবির সংকেত পেয়ে ট্রলারটি গতি না থামিয়ে আরও বাড়িয়ে দেয়। বিজিবির টহলদল স্পিডবোট নিয়ে ধাওয়া করে ট্রলারটিকে আটক করতে সক্ষম হয়।

বিজিবি আরও জানায়, নাফ নদীতে ভাটা পড়ায় বুধবার ট্রলারটিকে জিন্নাহ খাল হতে টেকনাফ জেটিঘাটে নিয়ে আসা হয়। এসময় তল্লাশি চালিয়ে ট্রলারের পাটাতনের মধ্যে পাঁচ কোটি ২৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা মূল্যের ১.০৫৯ কেজি ক্রিস্টাল মেথ আইস, মিয়ানমার থেকে অবৈধভাবে পাচার করে আনা দুই লাখ ১০ হাজার টাকা মূল্যের ৩.৫ টন গর্জন কাঠ জব্দ করা হয়। এছাড়াও ৪৫ লাখ টাকা মূল্যের ট্রলার ও আটকদের কাছ থেকে ১১ হাজার ৫০০ টাকা মূল্যের পাঁচটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। জব্দ করা মালামাল আইন অনুযায়ী টেকনাফ শুল্ক গুদামে জমা দিয়ে আটক ছয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দিয়ে টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।

এদিকে, হোয়াইক্যং চেকপোস্টে টেকনাফ ব্যাটালিয়নের (২ বিজিবি) অপর এক অভিযানে দুই লাখ ৮৭ হাজার টাকা মূল্যের ৯৫৫ পিস ইয়াবা ও একটি মোবাইল ফোনসহ এক নারীকে আটক করা হয়েছে। জব্দ করা মালামালসহ নিয়মিত মামলার মাধ্যমে তাকেও টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

দুই অভিযানে প্রায় সাড়ে পাঁচ কোটি টাকার মাদক ও মালামাল জব্দ করা হয়েছে বলে বিজিবির পক্ষ থেকে জানানো হয়।