চৌগাছায় একই বাড়িতে তিন লাশ, এলাকায় শোকের ছায়া

যশোরের চৌগাছায় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় লিমন হোসেন খান (১৭) নামে এক কিশোর নিহত হয়েছেন। একই দিন ওই পরিবারে দুই সহোদর হত্যার ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

দুর্ঘটনায় নিহত লিমন উপজেলার টেঙ্গুপুর গ্রামের গোলাম মোস্তফা খানের ছেলে। বৃহস্পতিবার রাতে চৌগাছায় জোড়া মার্ডারের শিকার হওয়া সহোদর আয়ূব খান ও ইউনুছ খানের আপন চাচাতো ভাইয়ের ছেলে (ভাতিজা)।

বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার নারায়ণপুর-বকসিপুর সড়কের কপোতাক্ষ সেতুতে মোটরসাইকেল চালাতে গিয়ে নিজেই পড়ে যায়। এতে আহত হলে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। পরে সেখানকার চিকিৎসক তাকে চিকিৎসা দিয়ে বাড়িতে নেওয়ার জন্য বলেন।

বাড়িতে নেওয়ার পর শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে আবারও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখান থেকে চিকিৎসক আবারও যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। সেখানে চকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুর ১টার দিকে লিমনের মৃত্যু হয়।

ইউপি সদস্য জাকির হোসেন বলেন, লিমনের লাশ হাসপাতাল থেকে এনে টেঙ্গুরপুর খানপাড়া কবরস্থানে দাফন করা হবে।

চৌগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম সবুজ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, চাচার পরে ভাতিজা মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন। তিনজনের লাশ বাড়িতে আসায় শোকের মাতম চলছে।