ঘরের আড়ায় ঝুলছিল গৃহবধূর লাশ

মাদারীপুরের কালকিনিতে ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় সুমি বেগম (২০) নামে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে কালকিনি থানা পুলিশ।

শনিবার (৯ এপ্রিল) সকাল ৮টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল করার জন্য মাদারীপুর মর্গে পাঠায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) নাসির উদ্দিন।

সুমি কালকিনি উপজেলার বাঁশগাড়ি এলাকার চর কানুরগাও গ্রামের কুদ্দুস শরীফের মেয়ে। তার একটি ছেলে সন্তান আছে।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ওসি জানান, কালকিনি উপজেলার বাঁশগাড়ি এলাকার চর কানুরগাও গ্রামের কুদ্দুস শরীফের মেয়ে সুমি বেগমের সঙ্গে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় একই গ্রামের লাবু কাজির। তাদের সংসারে একটি ছেলে সন্তানও রয়েছে। পরে একই গ্রামের আসলাম সিকদারের ছেলে মোস্তাকিনের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে সুমির। এক পর্যায়ে সুমি সন্তানসহ পালিয়ে বিয়ে করে মোস্তকিনকে। গত ১ বছর ধরে সুমি আর মোস্তাকিন কালকিনি উপজেলার কালিগঞ্জ বাজারের মুক্তা মাস্টারের বাড়িতে ভাড়া থাকা শুরু করে। আজ সকালে সুমি বেগমের লাশ ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলতে দেখে পুলিশে খবর দেয় প্রতিবেশীরা।

সুমির বাবা কুদ্দুস শরীফ বলেন, ‘আমার মেয়েকে বিভিন্ন সময় ওর স্বামী মোস্তাকিন নির্যাতন করত। যৌতুকের জন্য চাপ দিয়েছে কয়েকবার। আমরা গরীব হওয়ায় টাকা-পয়সা দিতে পারি নাই। ওর স্বামীই মারধর করে মেরে ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখেছে। আমরা মামলা করবো।’

ওসি নাসির উদ্দিন আরও জানান, সকালে স্থানীয়রা খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মাদারীপুর মর্গে পাঠায়। ঘটনার পর থেকে সুমির স্বামী মোস্তাকিন সিকদার ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন পলাতক রয়েছে। ময়নাতদন্তের ফলাফলের আসলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে