আ.লীগ ক্ষমতায় থাকতে বিএনপি কোনো নির্বাচনে যাবে না

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য জয়নুল আবদিন ফারুক বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকতে বিএনপি আর কোনো নির্বাচনে যাবে না। এই সরকারের অধীনে আর কোনো নির্বাচন হতেও দেওয়া হবে না। সব ভেদাভেদ ভুলে রাজপথের আন্দোলনের জন্য প্রস্তত হতে দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি তিনি আহ্বান জানান।

বুধবার (২ মার্চ) বিকেলে খুলনায় অনুষ্ঠিত বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন। চাল, ডাল, তেল, গ্যাসসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের চরম ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে খুলনা জেলা বিএনপি এই সমাবেশের আয়োজন করে।

নতুন নির্বাচন কমিশনার বিএনপিকে আস্থায় নিতে ভালো ভালো কথা বলছেন উল্লেখ করে কেন্দ্রীয় এই নেতা বলেন, আমরা আপনাকে বিশ্বাস করি না। ৩২২ জনের তালিকা থেকে ৫ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। নিয়োগ দিয়েছে এই অবৈধ রাতের ভোটের সরকার। তারা যাদের ওপর আস্থা রেখেছে, আমরা তার অধীনে নির্বাচনে যেতে পারি না। তিনি সরকারকে পদত্যাগ করে নিরপেক্ষ নির্বাচন দেওয়ার দাবি জানান।

সরকারের দুর্নীতি ও লুটপাটের কারণে দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতি অভিযোগ করে তিনি বলেন, তাদের ওয়ার্ড কমিটির নেতার কাছেও হাজার কোটি টাকা পাওয়া যায়। আর দেশের মানুষের দামের চাপে নাভিশ্বাস ওঠে।

তিনি বলেন, এই সরকার অত্যাচারি সরকার। তারা খুন করেছে। গুম করেছে। ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে। ২৫ লাখ মামলায় ৭৫ লাখ বিএনপি নেতাকর্মী আসামি। পুরো সপ্তাহ কাটে আদালতের বারান্দায়। মিথ্যা মামলায় দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়ে কারাবন্দী করেছে। তারেক রহমানকে দেশে ফেরার পথ রুদ্ধ করেছে। এত অত্যাচার-নির্যাতন তবু একজন কর্মীও বিএনপি ত্যাগ করেনি দাবি করে তিনি বলেন, ঐক্যবদ্ধ হয়ে এদের কালো হাত ভেঙ্গে দিতে হবে। নতুবা ভবিষ্যতে কেউ এই দেশে রাজনীতি করতে পারবে না। আগামীতে আর কোনো কর্মসূচি গলির ভেতরে হবে না ঘোষণা দিয়ে তিনি বলেন, এরপর অনুমতি ছাড়াই বড় ময়দানে কর্মসূচি পালন করবে বিএনপি। তিনি রাজপথে এসে শক্তি পরীক্ষার জন্য শাসক দলের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন।

দুপুরে নগরীর কে ডি ঘোষ রোডে দলীয় কার্যালয়ের সামনে এ কর্মসূচি পালন করে খুলনা জেলা বিএনপি। জেলা কমিটির আহ্বায়ক আমীর এজাজ খানের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব মনিরুল হাসান বাপ্পীর সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহপ্রচার সম্পাদক কৃষিবীদ শামীমুর রহমান শামীম, মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক শফিকুল আলম মনা, সাহারুজ্জামান মোর্ত্তজা, শফিকুল আলম তুহিন, মো. তারিকুল ইসলাম জহির, আবু হোসেন বাবু, কাজী মাহমুদ আলী, আজিজুল হাসান দুলু, অ্যাডভোকেট মোমরেজুল ইসলাম, সাইফুর রহমান মিন্টু, ডা. আব্দুল মজিদ, মোল্লা মোশারফ হোসেন মফিজ, খায়রুল ইসলাম খান জনি, কামরুজ্জামান টুকু, আওলাদ হোসেন, আনারুল হক সোহেল, মাহবুব হাসান পিয়ারু, তৈয়েবুর রহমান, শামীম কবির, একরামুল হক হেলাল, অ্যাডভোকেট তছলিমা খাতুন ছন্দা, উজ্জল কুমার সাহা, মো. মুজিবর রহমান। সমাবেশের শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন হাফেজ জাহিদুর রহমান।

এর আগে দুপুর ২টা থেকে জেলার বিভিন্ন উপজেলা থানা ও মহানগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে বিএনপি, ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, শ্রমিক দল ও মহিলা দলের বিশাল বিশাল মিছিল সমাবেশস্থলে এসে উপস্থিত হয়। কিছু সময়ের মধ্যে কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায় সমাবেশস্থল। বিকেল ৩টা থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে সমাবেশের কাজ শুরু হয়।